মুক্ত বিহঙ্গ আকাশে উড়ে

Client Logo
  গল্পটি লিখেছেনঃ  মোহাম্মদ নায়িরুজ্জামান
  তারিখঃ 2016-12-03
  ভিজিটঃ 123

পাখি, তোর সুর ভুলিস নে--
আমার প্রভাত হবে বৃথাজানিস কি তা।  

পাখি প্রকৃতির অবিচ্ছেদ্য অংশ। প্রকৃতির ভারসাম্য রক্ষায় এবং সৌন্দর্য বর্ধনে পাখিরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। কিন্তু মানুষের অবিরত দখলদারিত্বে পাখিরা হয়ে পড়ছে বাস্তুহারা, এরিসাথে একশ্রেণীর লোভী মানুষ নানাভাবে ফাঁদ পেতে পাখি ধরে বিক্রি করছে। মুক্ত বিহঙ্গ আকাশ দেখে আজ সৌখিন লোকের ব্যালকনিতে থাকা খাঁচার ফাঁক দিয়ে। কিন্তু এই অবস্থা চলতে দেওয়া যায় না। বিগত ০৪ নভেম্বর ২০১৬ তারিখে সকালে সাংবাদিক জনাব বুলবুল আহমেদ এর প্রদত্ত তথ্যের ভিত্তিতে তেবাড়িয়া ইউনিয়নের চন্দ্রকলা ও কাফুরিয়া ইউনিয়নের চাঁদপুর দক্ষিনপাড়া গ্রামে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহি ম্যাজিস্ট্রেট ও নাটোর সদরের ইউএনও জনাব মোহাম্মদ নায়িরুজ্জামান। চন্দ্রকলা গ্রামে অভিযানকালে বক শিকারীরা ২টি শিকারী বকসহ ৬টি বক ও পাখি শিকার করার সরঞ্জামাদি রেখে পালিয়ে যায় । জব্দকৃত বকগুলো ঘটনাস্থলে অবমুক্ত করা হয় এবং পাখি শিকার করার সরঞ্জামাদি ধ্বংস করা হয় । পরে কাফুরিয়া ইউনিয়নের চাঁদপুর দক্ষিনপাড়া গ্রামে অভিযান পরিচালনা করে বিবাদী মোঃ শরীফুল ইসলাম(২৭),পিতা- মোঃ বদরুজ্জামান, সাং চাঁদপুর দক্ষিনপাড়া, নাটোর সদর এর বসতঘর হতে ২টি শিকারী পাখি (ঘুঘু ও ডাহুক),বিপুল পরিমান পাখি ধরার সরঞ্জামাদি ও নিষিদ্ধ ঘোষিত কারেন্ট জাল জব্দ করা হয় ।শিকারী পাখি সংরক্ষণ ও পাখি ধরার সরঞ্জামাদি সংরক্ষণ করার অপরাধে মোঃ শরীফুল ইসলাম (২৭) কে ০৬ (ছয়) মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয় এবং জব্দকৃত পাখি ধরার সরঞ্জামাদি ঘটনাস্থলে ধ্বংস করা হয় । পরে জব্দকৃত ২টি শিকারী পাখি (ঘুঘু ও ডাহুক) নাটোর সদর উপজেলাস্থ অভয়ারণ্যে অবমুক্ত করা হয়।

পাখিরা আবার তার ডানা মেলবে আকাশের সুনীল সীমানায়...এই প্রত্যাশায়...