মাতৃদুগ্ধের বিকল্প নাই, শিশুর সুসাস্থ্য নিশ্চিত করতে চাই

Client Logo
  • গল্প লিখেছেনঃ  বিশ্বজিত দেব
  • তারিখঃ 2017-04-19
  • ভিজিটঃ 785
 
আজকে যে শিশুটি জন্মগ্রহণ করল সেই ভবিষ্যতের বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিবে। তাই শিশুর সুসাস্থ্ নিশ্চিত করা আমাদের সকলের নৈতিক দায়িত্ব। বিশেষজ্ঞদের মতে ছয়মাস বয়স পার হ্ওয়ার আগে কোনপ্রকার খাবার দেয়ার প্রয়োজন নেই এমনকি পানি খা্ওয়ানোরও প্রয়োজন নাই। কিন্তু একশ্রেণির লোভী বানিজ্যিক চক্র শুধুমাত্র লাভের আশায় শিশুর তথাকথিতপ মাতৃদুগ্ধের  বিকল্প খাদ্য বাজারজাত করছে।বিষয়টি টাঙ্গাইল জেলাপ্রশাসনের নজরে আসলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার সিদ্ধান্ত নেই। কারন এইসব কাজ বন্ধে সরকার ২০১৩ সালে মাতৃদুগ্ধ বিকল্প, শিশু খাদ্য সংক্রান্ত বিজ্ঞাপন মুদ্রণ, প্রদর্শন, প্রচার এবং প্রকাশ করার অপরাধ যা মাতৃদুগ্ধ বিকল্প, শিশু খাদ্য, বাণিজ্যিকভাবে প্রস্তুতকৃত শিশুর বাড়তি খাদ্য ও উহা ব্যবহারের সরঞ্জামাদি (বিপণন নিয়ন্ত্রণ) আইন, ২০১৩ নামে একটি আইন পাশ করে যা মোবাইল কোর্ট আইন, ২০০৯ এর শিডিউলভুক্ত। পরিকল্পনা অনুযায়ী বেলা ১২.৩০ টার সময়  টাঙ্গাইল  জেলার  টাঙ্গাইল সদর  উপজেলাধীন  পুরাতন বাসস্ট্যান্ড, টাঙ্গাইল স্থানে আইন শৃংখলা রক্ষা ও অপরাধ প্রতিরোধ কার্যক্রম পরিচালনাকালে   ফোরকান ,  পিতা :  শহীদুল ইসলাম , বয়স:  25  বছর, ঠিকানা  :  পুরাণ বাসস্ট্যান্ড, টাঙ্গাইল   ,  মাতৃদুগ্ধ বিকল্প, শিশু খাদ্য সংক্রান্ত বিজ্ঞাপন মুদ্রণ, প্রদর্শন, প্রচার এবং প্রকাশ করার অপরাধ যা মাতৃদুগ্ধ বিকল্প, শিশু খাদ্য, বাণিজ্যিকভাবে প্রস্তুতকৃত শিশুর বাড়তি খাদ্য ও উহা ব্যবহারের সরঞ্জামাদি (বিপণন নিয়ন্ত্রণ) আইন, ২০১৩- এর ৪ ধারার লঙ্ঘন ও ১২ ধারায় দণ্ডনীয় অপরাধ । অপরাধ আমার  সামনে সংঘটিত  হওয়ায় ঘটনাস্থল থেকে উক্ত  আসামী ফোরকান এর বিরুদ্ধে  অভিযোগ গঠন করা হয় । অভিযোগটি তাকে পড়ে শোনালে ও বুঝিয়ে দিলে তিনি দোষ স্বীকার করেন।  আসামী দোষ স্বীকার করায় তাকে মোবাইল কোর্ট আইন, ২০০৯ এর ৭(২) ধারার বিধানমতেমাতৃদুগ্ধ বিকল্প, শিশু খাদ্য, বাণিজ্যিকভাবে প্রস্তুতকৃত শিশুর বাড়তি খাদ্য ও উহা ব্যবহারের সরঞ্জামাদি (বিপণন নিয়ন্ত্রণ) আইন, ২০১৩- এর ১২ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করে ফোরকানকে  ৫০০০ টাকা জরিমানা   প্রদান করা হলো। আসামী অর্থদণ্ড নগদ পরিশোধ করেন এবং  ভবিষ্যতে এইসব কাজ থেকে বিরত থাকার অঙ্গীকার করেন।

 প্রিন্ট